বঙ্গে এবার অঢেল ইলিশ, বাজার ছেয়ে যাবে রুপোলি শষ্য! দাম কত হবে?

Editor Desk

Updated on:

Follow
Whatsapp Channel

বেহুলা লক্ষিন্দরের কথা তো আমরা সকলেই পড়েছি কিন্তু জানেন কি বেহুলার বাবা পাত্রপক্ষকে কি দিয়ে আপ্যায়ন করেছিলেন! আপ্যায়নের তালিকাটা অনেক বড় থাকলেও তার মধ্যে ছিল ১৮ পদের মাছের মধ্যে ভাজা ইলিশ। আপনিও নিশ্চয়ই আসন্ন এই জামাইষষ্ঠীতে জামাইয়ের পাতে ইলিশ দেওয়ার কথায় ভাবছেন? তার সাথে আবার মাথায় ঘুরছে ইলিশ কিনতে কতটা গ্যাঁটের কড়ি খরচ যাবে!

ইলিশের কথা উঠলে বাঙালির রসনা রসসিক্ত তো হবে না এমন তো হতেই পারেনা। তাই জামাই আদরের জামাইয়ের পাতে ইলিশ তো চাইই চাই। তবে এই গরমের মাঝে একটু স্বস্তি শ্বশুরমশাইদের। ঘূর্ণিঝড় রিমেলের প্রভাবে শাপে বর আমজনতার। ঘূর্ণিঝড় রিমেল এর প্রভাব কেটে যাওয়ায় আবহাওয়া অনুকূল হচ্ছে উপকূলে। আর যার ফলে দেখা মিলতে চলেছে ইলিশের। এই কারণেই সমুদ্রে যাওয়ার জন্য সব রকম প্রস্তুতি নিচ্ছে মৎস্যজীবীরা।

রুপোলী শস্য বাজারে আনার তোড়জোড় শুরু কবে মাছ ধরতে যাবে মৎসজীবীরা?

জানা যাচ্ছে আগামী 14 ই জুন গভীর সমুদ্রে মাছ ধরতে যাবে মৎস্যজীবীরা তার আগে ট্রলার মেরামত, জাল সারাই-এর মতো কাজগুলি সেরে রাখছেন মৎস্যজীবীরা। ঝড়ের প্রভাব কমলেই আবার শুরু হবে কাজ। ক্ষতি সামান্য হলেও মৎস্যজীবীরা আবহাওয়ার পরিস্থিতি দেখে বেশ খুশি। এই মুহূর্তে দিনরাত এক কাজ করছেন মৎসজীবীরা। কাজ দুদিন পিছিয়ে গেলেও জামাইয়ের পাত খালি যাবে না ইলিশ থেকে।

বর্তমানে বাজারে কত করে ইলিশ বিক্রি হচ্ছে?

যদিও ইতিমধ্যে মুর্শিদাবাদ জেলার বিভিন্ন বাজারে মিলছে হাজার থেকে বারোশো টাকা কেজি দরে ইলিশ মাছ। জামাইষষ্ঠীর আগে ইলিশ মিলতেই খুশি ক্রেতারা। ইলশেগুড়ি আর পূবালী হাওয়ার দোসর হয়ে এসেছে ইলিশের জোয়ার। মৎস্যজীবীদের একাংশ দাবি এই বছর আগের বারের তুলনায় যোগান বেড়ে প্রায় পাঁচ গুণ হতে চলেছে। এরপর ১৪ই জুনের পর দুই বাংলাতেই বাজারগুলিতে দাম কমতে পারে ইংলিশের। বর্তমানে বাজারে এক থেকে দেড় কিলো পর্যন্ত ইলিশ মাছ হাজার থেকে বারোশো টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। তাহলে জামাইষষ্ঠীতে জামাইরা রেডি হয়ে যান ইলিশ ভাজা-ভাপা-ঝোল খেতে। ‌

About Author

Leave a Comment