জামাই ষষ্ঠীতে মিলবে না ইলিশ? রুপোলী শস্য নিয়ে বড় খবর সামনে এল

Editor Desk

Follow
Whatsapp Channel

Ilish: কথাই বলে বাঙালির বারো মাসে তেরো পার্বণ আর এই তেরো পার্বণের অন্যতম জামাইষষ্ঠী। এই বছর ১২ জুন পড়েছে জামাইষষ্ঠী আর তাই স্বাভাবিকভাবেই শশুর শাশুড়ির কিন্তু তোড়জোড় শুরু হয়ে গেছে। মেয়ে জামাই বাপের বাড়ি আসবে, তারপর আবার জামাই ষষ্ঠী বলে কথা! আদরের জামাই বাবাজি পাতে পঞ্চব্যঞ্জন না সাজিয়ে দিলে হয়?

জামাইয়ের পাতে কাতলা কালিয়া, চিকেন কষা, মাটন কষা, পোলাও এসবতো থাকছেই কিন্তু ইলিশ মাছ না হলে কী আর জমে! সরষে ইলিশে আর ভাত পাতে না পড়লে হয়! আর এই কারণেই অগ্রিম অর্ডার দিতে বাজারে ছুটছেন শ্বশুররা। কিন্তু সেখানেই নিরাশ হচ্ছেন আমজনতা!

সরকারের নিষেধাজ্ঞা

দীঘার মৎস্য ব্যবসায়ীরা জানাচ্ছেন বাজারে সেভাবে ইলিশ নেই। যা রয়েছে তাও আকাশছোঁয়া দাম। আর সাথে আশার খবরও শোনাতে পারছেন না মৎসজীবীরা। কারণ সূত্রের খবর অনুযায়ী এই সময়ে মাছেদের প্রজজনের পদ্ধতি চলে সমুদ্রে। তাই যাতে কোন সমস্যা সৃষ্টি না হয় সে কারণে মাছ ধরার ক্ষেত্রে কিছু নিয়ম জারি করেছে সরকার।

নিয়ম অনুযায়ী আগামী 14 জুন পর্যন্ত মৎস্যজীবীদের সমুদ্রের মাছ ধরতে যাওয়া নিষেধ করেছে। কিন্তু আবার জামাইষষ্ঠী পড়েছে ১২ জুন। সে ক্ষেত্রে বাজারে ইলিশ মাছ পাওয়া যায় যথেষ্ট কঠিন কাজ হবে তা আশা করা যাচ্ছে।

গুদামে মজুত নেই ইলিশ

আরেক মাছ বিক্রেতা সুজয় দাস জানান এই সময় কম-বেশি ইলিশ পাওয়া যায়। কিন্তু এই বছর আড়তে ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে না। গত কয়েক বছর ধরে দিঘার বাজারে সেই ভাবে ইলিশ ঢুকছে না। বাংলাদেশের কিছু ইলিশ বাজারে এলেও তার দামও চড়া‌‌। তাই জামাইষষ্ঠীতে কতোটা ইলিশের যোগান দেওয়া হবে তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।

আদৌ কি জামাইয়ের জন্য ইলিশ আপ্যায়ন সম্ভব! আর সম্ভব হলেও ইলিশে হাত দিতে যে ছ্যাঁকা পড়বে তা ভেবেই ঢোঁক গিলছেন মধ্যবিত্তরা।

About Author

Leave a Comment